নোটিশ বোর্ড

সম্মানিত অতিথি আপনার প্রিয় নজরুলগীতিটি এই ওয়েব সাইটে খুঁজে না পেলে অনুগ্রহ করে আমাদের জানান। আমরা যথা-শীঘ্র সেইটি সংযোজন করার চেষ্টা করবো।

গান শুনুন

Print

আর লুকাবি কোথা মা কালী

বাণী

আর লুকাবি কোথা মা কালী

বিশ্ব-ভুবন আঁধার ক’রে তোর রূপে মা সব ডুবালি।।

সুখের গৃহ শ্মশান ক’রে বেড়াস্ মা তায় আগুন জ্বালি’

দুঃখ দেবার রূপে মা তোর ভুবন-ভরা রূপ দেখালি।।

পূজা ক’রে, পাইনি তোরে মা গো এবার চোখের জলে এলি

বুকের ব্যথায় আসন পাতা ব’স্ মা সেথা দুখ্‌-দুলালী।।

রাগ ও তাল

রাগঃ বাগেশ্রী

তালঃ দাদ্‌রা

 

Print

আমি দেখন-হাসি

বাণী

আমি দেখন-হাসি

আমায়দেখ্‌লে পরে হাসতে হাসতে পেয়ে যাবে কাশী।।

আমিহাসির হাঁসলী ফিরি করি এলে আমার হাসির দেশে

বুড়োরা সব ছোঁড়া হয়, আর ছোঁড়ারা যায় টেসে।

আমারহাস-খালিতে বাড়ি, আমি হাস্নু হানার মাসি।।

এলেআমার হাসির হেঁসেলে তার হাঁসফাঁসানি লেগে

অন্তে শুধু দন্ত থাকে শরীরটা যায় ভেগে।

(আমি)পাতি হাঁসির আন্ডা বেচি আর হাসির ময়দা খাঁসি।।

সেদিন পথে যাচ্ছিল সব রাজার হাতি ঘোড়া উট

তারা না আমায় দেখি হাসতে হাসতে

‘চোঁ চোঁ চোঁ’ এই না বলি’ অমনি দিলে ছুট

হেসে পালিয়ে গেল দড়ি ছিঁড়ে মটরু মিঞার খাসি।।

রাগ ও তাল

রাগঃ বেহাগ মিশ্র

তালঃ দাদ্‌রা

 

Print

আমি কি সুখে লো গৃহে রবো

বাণী

আমিকি সুখে লো গৃহে রবো

সখি গো –

আমারশ্যাম হলো যদি যোগী ওলো সখি আমিও যোগিনী হবো।

আমি যোগিনী হবো

শ্যামযে তরুর তলে বসিবে লো ধ্যানে

সেথা অঞ্চল পাতি’ রবো

আমারবঁধুর পথের ধূলি হবো

আমায় চলে যেতে দলে যাবে সেই সুখে লো ধূলি হবো

সখি গো –

আমিআমার সুখের গোধূলি বেলার

রঙে রঙে তারে রাঙাইব

তারগেরুয়া রাঙা বসন হয়ে

জড়াইয়া রবো দিবস যামী

সখি গো –

সখিআমার কঠিন এ রূপ হবে রুদ্রাক্ষেরই মালা

তারমালা হয়ে ভুলব আমার পোড়া প্রাণের জ্বালা

আমারএ দেহ পোড়ায়ে হইব চিতা ছাই

মাখিবে যোগী মোর পুড়িব সেই আশায়

পোড়ার কি আর বাকি আছে

আমারশ্যাম গেছে যোগী হয়ে ছায়া শুধু পড়ে আছে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ 

তালঃ ফের্‌তা (দাদ্‌রা, ঝাঁপ ও কাহার্‌বা)

 

Print

জগতের নাথ তুমি তুমি প্রভু প্রেমময়

বাণী

জগতের নাথ তুমি, তুমি প্রভু প্রেমময়।

আমি জগতের বাহিরে নহি দেহ চরণে আশ্রয়।।

যাহাদের তরে আমি খাটিনু দিবস-রাতি,

(আমার)যাবার বেলায় কেহ তাদের হ’ল না সাথের সাথি।

সম্পদ মোর পাঁচ ভূতে খায়, কর্ম কেবল সঙ্গে রয়।।

ভুলিয়া সংসার মোহে লই নাই তোমারি নাম –

তরাতে এমন পাপী পাবে না হে ঘনশ্যাম।

শুনেছি তোমারে যদি কাঁদিয়া কেহ ডাকে –

তুমি অমনি তারে কর ক্ষমা চরণে রাখ তাকে।

আমি সেই আশাতে এসেছি নাথ যদি তব কৃপা হয়।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহার্‌বা

Print

ওমা একলা ঘরে ডাকব না আর দুয়ার বন্ধ ক’রে

বাণী

ওমা একলা ঘরে ডাকব না আর দুয়ার বন্ধ ক’রে। 

তুই সকল ছেলের মা যেখানে ডাকব মা সেই ঘরে।।

রুদ্ধ আমার একলা এ মন্দিরে,

পথ না পেয়ে যাস্ বুঝি মা ফিরে,

মোরে জ্যোতির্লোকে ঘুম্ পাড়িয়ে তাপিত সন্তানে নিয়ে

মাগো কাঁদিস্ বুকে ধ’রে।।

আমি একলা মানুষ হ’তে গিয়ে হারাই মা তোর স্নেহ,

আমি যে ঘর যেতে ঘৃণা করি মা,-সেবি তোর গেহ।

দুর্বল মোর ভাই বোনদের তুলে,

আমি দাঁড়াব মা যেদিন, চরণ মূলে।

সেদিন মা তুই আপনি এসে কোলেতুলে নিবি হেসে,

আর হারাব না তোরে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ দাদ্‌রা

Print

আমি মুক্তা নিতে আসিনি মা

বাণী

(মা) আমি, মুক্তা নিতে আসিনি মা ও মা তোর মুক্তি-সাগর কূলে।

মোর ভিক্ষা-ঝুলি হ’তে মায়ার মুক্তা মানিক নে মা তুলে।।

মা তুই, সবই জানিস অন্তর্যামী,

সেই চরণ-প্রসাদ ভিক্ষু আমি,

শবেরও হয় শিবত্ব লাভ মা তোর যে চরণ ছুঁলে।।

তুই অর্থ দিয়ে কেন ভুলাস এই পরমার্থ ভিখারিরে,

তোর প্রসাদী ফুল পাই যদি মা গঙ্গা ধারাও চাই না শিরে।

তোর শক্তিমন্ত্রে শক্তিময়ী

আমি হতে পারি ব্রহ্ম-জয়ী

সেই মাতৃনামের মহাভিক্ষু তোর মায়াতেও নাহি ভুলে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ দাদ্‌রা

 

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 1553651 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 3755907 বার