নোটিশ বোর্ড

কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকীতে নজরুলগীতির সকল শুভানুধ্যায়ীকে জানাচ্ছি প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।

গান শুনুন

Print

আমার বিফল পূজাঞ্জলি অশ্রু-স্রোতে যায় যে ভেসে


বাণী

আমার বিফল পূজাঞ্জলি অশ্রু-স্রোতে যায় যে ভেসে
তোমার আরাধিকার পূজা হে বিরহী, লও হে এসে॥
    খোঁজে তোমায় চন্দ্র তপন
    পূজে তোমায় বিশ্বভুবন,
আমার যে নাথ ক্ষণিক জীবন মিটবে কি সাধ ভালবেসে॥
না দেখা মোর, বন্ধু ওগো কোথায়, তুমি কোথায়, বাঁশি বাজাও একা,
প্রাণ বোঝে তা অনুভবে নয়ন কেন পায় না দেখা।
    সিন্ধু যেমন বিপুল টানে
    তটিনীরে টেনে আনে,
তেমনি করে তোমার পানে আমায় ডাকো নিরুদ্দেশে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

বিদায়-সন্ধা আসিল ঐ ঘনায় নয়নে অন্ধকার


বাণী

বিদায়-সন্ধা আসিল ঐ ঘনায় নয়নে অন্ধকার।
হে প্রিয়, আমার, যাত্রা-পথ অশ্রু-পিছল ক’রো না আর॥
    এসেছিনু ভেসে স্রোতের, ফুল
    তুমি কেন প্রিয় করিলে ভুল
তুলিয়া খোঁপায় পরিয়া তা’য় ফেলে দিলে হায় স্রোতে আবার॥
    হেথা কেহ কারো বোঝে না মন
    যারে চাই হেলা হানে সে’ জন
যারে পাই সে না হয় আপন হেথা নাহি হৃদি ভালোবাসার।
    তুমি বুঝিবে না কি অভিমান
    মিলনের মালা করিল ম্লান
উড়ে যাই মোর, দূর বিমান সেথা গা’ব গান আশে তোমার॥

রাগ ও তাল

রাগঃ ভীমপলশ্রী মিশ্র
তালঃ একতাল

Print

মোরা বিহান-বেলা উঠে রে ভাই চাষ করি এই মাটি


বাণী

    মোরা বিহান-বেলা উঠে রে ভাই চাষ করি এই মাটি।
    যে মাটির বুকে আছে পাকা ধানের সোনার কাঠি॥
    ফসল বুনে রোদের তাতে উঠি যখন ঘেমে
    সদয় হয়ে আকাশ বেয়ে বৃষ্টি আসে নেমে
(ওরে)    মুচকি হেসে বৌ এনে দেয় পান্তা ভাতের বাটি॥
    আশ মেটে না চারা ধানের পানে চেয়ে চেয়ে
    মরাই ভ’রে থাকবে ওরাই আমার ছেলে মেয়ে।
(আমি)    চাই না স্বর্গ, পাই যদি এই পাকা ধানের আটি (রে ভাই)॥
    জল নিতে যায় আড়চোখে চায় বৌ-ঝি নদীর কূলে
    খুশিতে বুক ভ’রে ওঠে, খাটুনি যাই ভুলে।
    এ মাঠ নয় ভাই বৌ পেতেছে ঠান্ডা শীতল পাটি॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ কাহার্‌বা

Print

সেদিন অভাব ঘুচবে কি মোর যেদিন তুমি আমার হবে

বাণী

সেদিন অভাব ঘুচবে কি মোর যেদিন তুমি আমার হবে
আমার ধ্যানে আমার জ্ঞানে প্রাণ মন মোর ঘিরে রবে।।
	রইবে তুমি প্রিয়তম
	আমার দেহে আত্মা-সম
জানি না সাধ মিটবে কি-না -  তেমন করেও পাব যবে।।
পাওয়ার আমার শেষ হবে না পেয়েও তোমায় বক্ষতলে
সাগর মাঝে মিশে গিয়েও নদী যেমন ব’য়ে চলে।
	চাঁদকে দেখে পরান জুড়ায়
	তবু দেখার সাধ কি ফুরায়
মিটেছেল সাধ কি রাধার নিত্য পেয়েও নীল-মাধবে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ ষট্ টোড়ি

তালঃ ত্রিতাল

Print

দোলা লাগিল দখিনার বনে বনে


বাণী

দোলা লাগিল দখিনার বনে বনে
বাঁশরি বাজিল ছায়ানটে মনে মনে॥
    চিত্তে চপল নৃত্যে কে
    ছন্দে ছন্দে যায় ডেকে;
যৌবনের বিহঙ্গ ঐ ডেকে ওঠে ক্ষণে ক্ষণে॥
বাজে বিজয়-ডঙ্কা তারই এলো তরুণ ফাল্গুনী,
জাগো ঘুমন্ত – দিকে দিকে ঐ গান শুনি’।
    টুটিল সব অন্ধকার –
    খোলো খোলো বন্ধ দ্বার;
বাহিরে কে যাবি আয় সে শুধায় জনে জনে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ ছায়ানট
তালঃ একতাল

Print

হোরি খেলে নন্দলালা


বাণী

হোরি খেলে নন্দলালা
প্রেমের রঙে মাতোয়ালা॥
বিশ্বরাধা সে সাথে রঙে খেলায় মাতে
রঙে ত্রিভুবন ছায় রাঙা আলোক আবির ছড়ায়
        হোরি রবি-শশী থালা॥
আজি বনে বনে মনে মনে হোরি
মনের মরুতে লতায় তরুতে রাঙা ফুল ফোটে মরি মরি।
আজি প্রাণে প্রাণে ফুল দোল
দোল পূর্ণিমা রাতি রাঙা ফুল তারা বাতি
        ধরণীতে আকাশে জ্বালা॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ ফের্‌তা

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 1657945 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 3860376 বার