নোটিশ বোর্ড

কাজী নজরুল ইসলামের ১২০তম জন্মবার্ষিকীতে নজরুলগীতির সকল শুভানুধ্যায়ীকে জানাচ্ছি প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।

গান শুনুন

সকল গানের বাণী

Print

জগজন মোহন সঙ্কটহারী

বাণী

জগজন মোহন সঙ্কটহারী
কৃষ্ণমুরারী শ্রীকৃষ্ণমুরারী।
রাম রচাও ত শ্যামবিহারী
পরম যোগী প্রভু ভবভয়-হারী।।
গোপী-জন-রঞ্জন-ব্রজ-ভয়হারী,
পুরুষোত্তম প্রভু গোলক-চারী।।
বন্‌শী বাজাও ত বন বন-চারী
ত্রিভুবন-পালক ভক্ত-ভিখারি,
রাধাকান্ত হরি শিখি-পাখাধারী —
কমলাপতি জয় গোপী-মনহারী।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ

Print

জগতের নাথ কর পার হে

বাণী

জগতের নাথ কর পার হে
মায়া-তরঙ্গে টলমল তরণী অকুল ভব পারাবার হে।।
নাহি কাণ্ডারি ভাঙা মোর তরী আশা নাই কুলে উঠিবার
আমি গুণহীন ব'লে করো যদি হেলা শরণ লইব তবে কার।।
সঙসারেরি এই ঘোর পাথারে ছিল যারা প্রিয় সাথি
একে একে তারা ছাড়িয়া গেল হায় ঘনাইল যেই দুখ-রাতি।
	ধ্রুবতারা হয়ে তুমি জ্বালো
	অসীম আঁধারে প্রভু আশারই আলো
তোমার করুণা বিনা হে দীনবন্ধু, পারের আশা নাহি আর।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহার্‌বা

ভিডিও

স্বরলিপি

Print

জগতের নাথ তুমি তুমি প্রভু প্রেমময়

বাণী

জগতের নাথ তুমি, তুমি প্রভু প্রেমময়।

আমি জগতের বাহিরে নহি দেহ চরণে আশ্রয়।।

যাহাদের তরে আমি খাটিনু দিবস-রাতি,

(আমার)যাবার বেলায় কেহ তাদের হ’ল না সাথের সাথি।

সম্পদ মোর পাঁচ ভূতে খায়, কর্ম কেবল সঙ্গে রয়।।

ভুলিয়া সংসার মোহে লই নাই তোমারি নাম –

তরাতে এমন পাপী পাবে না হে ঘনশ্যাম।

শুনেছি তোমারে যদি কাঁদিয়া কেহ ডাকে –

তুমি অমনি তারে কর ক্ষমা চরণে রাখ তাকে।

আমি সেই আশাতে এসেছি নাথ যদি তব কৃপা হয়।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহার্‌বা

Print

জগৎ জুড়ে জাল ফেলেছিস্ মা


বাণী

জগৎ জুড়ে জাল ফেলেছিস্ মা, শ্যামা কি তুই জেলের মেয়ে।
(তোর) মায়ার জালে মহামায়া, বিশ্বভুবন আছে ছেয়ে॥
    প’ড়ে মা তোর মায়ার ফাঁদে
    কোটি নরনারী কাঁদে;
তোর মায়াজাল ততই বাঁধে পালাতে চায় যত ধেয়ে॥
চতুর যে-মীন সে জানে মা জাল থেকে যে মুক্তি আছে;
(তাই)     জেলে যখন জাল ফেলে মা সে লুকায় জেলের পায়ের কাছে।
                জাল এড়িয়ে তাই সে বাঁচে।
        তাই মা আমি নিলাম শরণ
        তোর ও দুটি রাঙা চরণ,
এড়িয়ে গেলাম মায়ার বাঁধন মা তোর অভয়-চরণ পেয়ে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

জনম জনম গেল আশা পথ চাহি

বাণী

জনম জনম গেল আশা–পথ চাহি’।
মরু–মুসাফির চলি, পার নাহি নাহি।।
বরষ পরে বরষ আসে যায় ফিরে,
পিপাসা মিটায়ে চলি নয়নের নীরে।
জ্বালিয়া আলেয়া–শিখা, নিরাশার মরীচিকা
ডাকে মরু–কাননিকা শত গীত গাহি’।।
এ মরু ছিল গো কবে সাগরের বারি
স্বপন হেরি গো তারি আজো মরুচারী।
সেই সে সাগর–তলে, যে তরী ডুবিল জলে
সে তরী–সাথীরে খুঁজি মরু–পথ বাহি’।।

রাগ ও তাল

রাগঃ বাগেশ্রী

তালঃ কাহার্‌বা

ভিডিও

Print

জরীন হরফে লেখা

বাণী

	জরীন হরফে লেখা
	রূপালি হরফে লেখা
(নীল)	আসমানের কোরআন।
সেথা	তারায় তারায় খোদার কালাম
(তোরা)	পড়, রে মুসলমান
নীল	আসমানের কোরআন।।
	সেথা ঈদের চাঁদে লেখা
	মোহাম্মদের ‘মীম’-এর রেখা,
সুরুযেরই বাতি জ্বেলে’ পড়ে রেজোয়ান।।
খোদার আরশ লুকিয়ে আছে ঐ কোরআনের মাঝে,
খোঁজে ফকির-দরবেশ সেই আরশ সকাল-সাঁঝে।
	খোদার দিদার চাস রে, যদি
	পড় এ কোরআন নিরবধি;
খোদার নুরের রওশনীতে রাঙ রে দেহ-প্রাণ।।

রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ দাদ্‌রা

ভিডিও

স্বরলিপি

Print

জহরত পান্না হীরার বৃষ্টি


বাণী

পুরুষঃ    জহরত পান্না হীরার বৃষ্টি
    তব হাসি-কান্না চোখের দৃষ্টি
    তারও চেয়ে মিষ্টি মিষ্টি মিষ্টি॥
স্ত্রীঃ    কান্না-মেশানো পান্না নেবো না, বঁধু।
    এই পথেরই ধূলায় আমার মনের মধু
    করে হীরা মানিক সৃষ্টি মিষ্টি আরো মিষ্টি॥
পুরুষঃ    সোনার ফুলদানি কাঁদে লয়ে শূন্য হিয়া
    এসো মধু-মঞ্জরি মোর! এসো প্রিয়া, প্রিয়া!
স্ত্রীঃ    কেন ডাকে বউ কথা কও, বউ কথা কও,
    আমি পথের ভিখারিনী গো, নহি ঘরের বউ।
    কেন রাজার দুলাল মাগে মাটির মউ।
    বুকে আনে ঝড়, চোখে বৃষ্টি তার সকরুণ দৃষ্টি তবু মিষ্টি॥

সিনেমাঃ চৌরঙ্গী

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ কাহার্‌বা

Print

জাগো অমৃত-পিয়াসি চিত


বাণী

জাগো অমৃত-পিয়াসি চিত

      আত্মা অনিরুদ্ধ

      কল্যাণ প্রবুদ্ধ

জাগো শুভ্র জ্ঞান পরম

নব প্রভাত পুষ্প সম

      আলোক-স্নান-শুদ্ধ।।

সকল পাপ কলুষ তাপ দুঃখ গ্লানি ভোলো

পুণ্য প্রাণ-দীপ-শিখা স্বর্গ পানে তোলো

বাহিরে আলো ডাকিছে জাগো তিমির কারারুদ্ধ।।

   ফুলের সম আলোর সম

   ফুটিয়া ওঠ হৃদয় মম

রূপ রস গন্ধে অনায়াস আনন্দে জাগো মায়া-বিমুগ্ধ।।


রাগ ও তাল

রাগঃ হেমকল্যাণ

তালঃ ঝাঁপতাল

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 3437252 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 5620821 বার