নোটিশ বোর্ড

নজরুলগীতির সকল অতিথি ও শুভানুধ্যায়ীকে জানাচ্ছি পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ। ঈদ মোবারক।

গান শুনুন

সকল গানের বাণী

Print

নতুন ক’রে রেজওয়ান জিন্নত সাজায়


বাণী

নতুন করে রেজওয়ান জিন্নত সাজায়

আজ  রোজায় আজ  রোজায় আজ  রোজায়।

লাগল চাবি দোজখেরি দরওয়াজায়।।

     মসজিদেরি মিনার-চুড়ে

     আজ  বেহেশতী নিশান উড়ে

গাফলতি নাই আর কারো নামাজ কাজায়।।

     রোজার শবেকদর রাতে

     কোরান এলো দুনিয়াতে

ফেরেশতা সব সালাম জানায় মোর্তজায়।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহারবা

Print

নতুন খেজুর রস এনেছি মেটে কলস ভ'রে


বাণী

নতুন খেজুর রস এনেছি মেটে কলস ভ'রে

ভিন গাঁ হতে এনে গো রস-পিয়াসি

ও আমার রস-পিয়াসি রসিক জনের তরে।।

     মিঠে রোদে শীতের দিনে

     তরুণ-বঁধূ লও গো কিনে

ফাগুন-হাওয়া বইবে প্রাণে, ওগো হালকা নেশার ঘোরে।।

মলিন মুখে দিয়ে দেখ নলিন খেজুর-গুড়

বাহির-ভিতর হবে তাহার মিষ্টিতে ভরপুর

     ওগো মিষ্টিতে ভরপুর।

     মোর তনুর চেয়ে অনেক বেশি

     মধুর এ রস ও বিদেশি,

রস না পিয়েও ঝিমিয়ো না গো নেশায় অমন ক'রে।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ ফেরতা

Print

নতুন পাতার নূপুর বাজে দখিনা বায়ে


বাণী

নতুন পাতার নূপুর বাজে দখিনা বায়ে
কে এলে গো, কে এলে গো চপল পায়ে।।
ছায়া-ঢাকা আমরে ডালে চপল আঁখি
উঠল ডাকি' বনের পাখি- উঠল ডাকি'।
নতুন চাঁদের জোছনা মাখি সোনাল শাখায় দোল দুলায়ে
কে এলে গো, কে এলে গো চপল পায়ে।।
সুনীল তোমার ডাগর চোখরে দৃষ্টি পিয়ে
নতুন চাঁদরে জোছনা মাখি সোনাল শাখায় দোল দুলায়ে
কে এলে গো, কে এলে গো চপল পায়ে।।
সুনীল তোমার ডাগর চোখের দৃষ্টি পিয়ে
সাগর দোলে, আকাশ ওঠে ঝিলমিলিয়ে।
পিয়াল বনে উঠল বাজি তোমার বেণু
ছড়ায় পথে কৃষ্ণচূড়া পরাগ-রেণু।
ময়ূর-পাখা বুলিয়ে চোখে কে দিলে গো ঘুম ভাঙায়ে।
কে এলে গো চপল পায়ে।।


রাগ ও তাল

রাগঃ 

তালঃ দাদ্‌রা

Print

নদীর নাম সই অঞ্জনা


বাণী

নদীর নাম সই অঞ্জনা নাচে তীরে খঞ্জনা,

পাখি সে নয় নাচে কালো আঁখি।

আমি যাব না আর অঞ্জনাতে জল নিতে সখি লো,

ঐ আঁখি কিছু রাখিবে না বাকি।।

সেদিন তুলতে গেলাম দুপুর বেলা

কলমি শাক ঢোলা ঢোলা (সই)

ল না আর সখি লো শাক তোলা,

আমার মনে পড়িল সখি, ঢল ঢল তার চটুল আঁখি

ব্যথায় ভরে উঠলো বুকের তলা।

ঘরে ফেরার পথে দেখি,

নীল শালুক সুঁদি ও কি

ফুটে আছে ঝিলের গহীন জলে।

আমার অমনি পড়িল মনে

সেই ডাগর আঁখি লো

ঝিলের জলে চোখের জলে হল মাখামাখি।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহার্‌বা


অডিও

শিল্পীঃ কাশফিয়া বিল্লাহ

Print

নদীর স্রোতে মালার কুসুম ভাসিয়ে দিলাম প্রিয়


বাণী

নদীর স্রোতে মালার কুসুম ভাসিয়ে দিলাম, প্রিয়!

আমায় তুমি নিলে না, মোর ফুলের পূঁজা নিও।।

     পথ-চাওয়া মোর দিনগুলিরে

     রেখে গেলাম নদীর তীরে

আবার যদি আস ফিরে- তুলে গলায় দিও।।

নিভে এলো পরান -প্রদীপ পাষাণ-বেদীর তলে,

জ্বালিয়ে তা'রে রাখব কত শুধু চোখের জলে।

     তারা হয়ে দুর আকাশে

     রইব জেগে' তোমার আশে

চাঁদের পানে চেয়ে চেয়ে' আমারে স্মরিও।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ দাদরা

Print

নন্দ দুলাল নাচে নাচে রে হাতে সরের নাড়ু নিয়ে নাচে


বাণী

নন্দ দুলাল নাচে নাচে রে হাতে সরের নাড়ু নিয়ে নাচে
ব্রজের গোপাল নাচে নাচে রে হাতে সরের নাড়ু নিয়ে নাচে
ওসে হাতের নাড়ু মুখে ফেলে, আড় চোখে চায় হেলে দুলে
যথায় গোপীর ক্ষীর নবনী দইয়ের হাঁড়ি আছে॥
শূন্য দু হাত শূন্যে তুলে দেয় সে করতালি বলে তাই তাই তাই
নন্দ পিতায় কয় ইশারায় নাই ননী নাই
নন্দ ধরতে গেলে যায় পিছিয়ে
মুচকি হেসে যায় এগিয়ে যশোমতীর কাছে রে॥
কহে শিউরে উঠে শিমুল ফুল নাচ রে গোপাল নাচ নাচ রে
    নাচ রে গোপাল নাচ
সারা গায়ে ঘুঙুর বেঁধে নাচে ডুমুর গাছ রে
    নাচ রে গোপাল নাচ
শিমুল গায়ে নাচে সুখে কাঁটা দিয়ে ওঠে ফুল ফোটে মরা গাছে॥
    নাচ ভুলে সে থমকে দাঁড়ায়
    মার চোখে জল দেখতে সে পায় রে
ননী মাখা দু হাত দিয়ে চোখ মুছিয়ে লুকায় বুকের কাছে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দ্রুত-দাদ্‌রা

Print

নন্দকুমার বিনে সই আজি বৃন্দাবন অন্ধকার


বাণী

নন্দকুমার বিনে সই আজি বৃন্দাবন অন্ধকার

           নাহি ব্রজে আনন্দ আর।

যমুনার জল দ্বিগুণ বেড়েছে ঝরি গোকূলে অশ্রুধার।।

শীতল জানিয়া মেঘ বরণ শ্যামের শরণ লইয়া সই

তৃষিতা চাতকী জ্বলে মরি হায় বিরহ দাহনে ভস্ম হই।

শীতল মেঘে অশনি থাকে

কে জানিত সখি সজল কাজল শীতল মেঘে অশনি থাকে।

ব্রজে বাজে না বেণু আর চরে না ধেনু

(আর) পড়ে না গোকুলে শ্যাম চরণ রেণু

তার ফেলে যাওয়া বাঁশি নিয়ে শ্রীদাম সুদাম

ধায় মথুরার পথে আর কাঁদে অবিরাম।

কৃষ্ণে না হেরি দূর বন পার উড়ে গেছে শুক সারি

কৃষ্ণ যেথায় সেই মথুরায় চলো যাই ব্রজনারী।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ ফেরতা

Print

নন্দন বন হতে কি গো ডাকো মোরে


বাণী

নন্দন বন হতে কি গো ডাকো মোরে আজো নিশীথে

ক্ষণে ক্ষণে ঘুম হারা পাখি কেঁদে ওঠে করুন-গীতে।।

     ভেঙে যায় ঘুম চেয়ে থাকি

     চাহে চাঁদ ছলছল আখিঁ

ঝরা   চম্পার ফুল যেন কে ফেলে চলে যায় চকিতে।।

সহিতে না তিলেক বিরহ ছিলে যবে জীবনের সাতি,

ব'লে যাও আজ কোন অমরায় কেমনে কাটাও দিবারাতি।।

     জীবনে ভুলিলে তুমি যারে

     তারে ভুলে যাও মরনের ওপারে

আঁধার ভুবনে মোরে একাকী দাও মোরে দাও ঝুরিতে।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহারবা

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 1694423 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 3895496 বার