নোটিশ বোর্ড

সম্মানিত অতিথিগণ সার্ভারের কারিগরি সমস্যার কারণে মাঝে মধ্যে নজরুলগীতি ওয়েব সাইটটি দেখতে সমস্যা হচ্ছে। এই অনাকাঙ্ক্ষিত অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

গান শুনুন

সকল গানের বাণী

Print

আমি কলহেরি তরে কলহ করেছি বোঝনি কি রসিক বঁধূ


বাণী

আমি কলহেরি তরে কলহ করেছি বোঝনি কি রসিক বঁধূ।
তুমি মন বোঝ মনোচোর মান বোঝ নাকি হে-
তুমি ফুল চেন, চেন নাকি মধু?
তুমি যে মধুবনের মধুকর,
তুমি মধুরম মধুরম মধুময় মনোহর
কলহেরি কূলে রহে অভিমান-মধু যে, চেন নাকি বঁধু হে-
রাগের মাঝে রহে অনুরাগ-মধু যে, দেখ নাকি বঁধু হে-
কলঙ্কী বলে গগনের চাঁদ প্রতি দিন ক্ষয় হয়
তুমি নিত্য পূর্ণ চাঁদ সম প্রিয়তম চির অক্ষয়
এ চাঁদে একাদশী নাই হে-
শুধু রাধা একা দোষী হলো নিত্য কেন পায় না
মোর কৃষ্ণ চাঁদে যে একাদশী নাই হে-
সেই ব্রজগোপীদের ঘর আছে পর আছে
কৃষ্ণ বিনা নাই রাধার কেহ
আমিও জানি যেন আমাও শ্রীকৃষ্ণ কেবল রাধাময় দেহ।
সে রাধা প্রেমে বাঁধা সে রাধা ছাড়া জানে না, রাধাময় দেহ
সে রাধা প্রেমে বাঁধা।

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ ফেরতা (কাহারবা ও দাদরা)

Print

আমি কি সুখে লো গৃহে রবো

বাণী

আমিকি সুখে লো গৃহে রবো

সখি গো –

আমারশ্যাম হলো যদি যোগী ওলো সখি আমিও যোগিনী হবো।

আমি যোগিনী হবো

শ্যামযে তরুর তলে বসিবে লো ধ্যানে

সেথা অঞ্চল পাতি’ রবো

আমারবঁধুর পথের ধূলি হবো

আমায় চলে যেতে দলে যাবে সেই সুখে লো ধূলি হবো

সখি গো –

আমিআমার সুখের গোধূলি বেলার

রঙে রঙে তারে রাঙাইব

তারগেরুয়া রাঙা বসন হয়ে

জড়াইয়া রবো দিবস যামী

সখি গো –

সখিআমার কঠিন এ রূপ হবে রুদ্রাক্ষেরই মালা

তারমালা হয়ে ভুলব আমার পোড়া প্রাণের জ্বালা

আমারএ দেহ পোড়ায়ে হইব চিতা ছাই

মাখিবে যোগী মোর পুড়িব সেই আশায়

পোড়ার কি আর বাকি আছে

আমারশ্যাম গেছে যোগী হয়ে ছায়া শুধু পড়ে আছে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ 

তালঃ ফের্‌তা (দাদ্‌রা, ঝাঁপ ও কাহার্‌বা)

 

Print

আমি কুল ছেড়ে চলিলাম ভেসে বলিস ননদীরে


বাণী

আমি  কুল ছেড়ে চলিলাম ভেসে বলিস ননদীরে সই, বলিস ননদীরে।

     শ্রীকৃষ্ণ নামের তরণীতে প্রেম-যমুনার তীরে বলিস ননদীরে

                     স্ই, বলিস ননদীরে।।

     সংসারে মোর মন ছিল না, তবু মানের দায়ে

আমি  ঘর করেছি সংসারেরি শিকল বেঁধে পায়ে

     শিকলি-কাটা পাখি কি আর পিঞ্জরে সই ফিরে।।

     বলিস গিয়ে কৃষ্ণ নামের কলসি বেঁধে গলে

     হুবেছে রাই কলঙ্কিনী কালিদহের জলে।

     কলঙ্কেরই পাল তুলে সই, চললেম অকূল-পানে

     নদী কি সই, থাকতে পারে সাগর যখন টানে।

     রেখে গেলাম এই গোকুলে কুলের বৌ-ঝিরে।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহারবা

Print

আমি গগন গহনে সন্ধ্যা-তারা


বাণী

আমি   গগন গহনে সন্ধ্যা-তারা
           কনক গাঁদার ফুল গো।
     গোধূলির শেষে হেসে উঠি আমি
           এক নিমেষের ভুল গো।
আমি  কণিকা,
আমি  সাঁঝের অধরে ম্লান আনন্দ-কণিকা
আমি  অভিমানিনীর খুলে ফেলে দেওয়া মণিকা
আমি   দেব-কুমারীর দুল গো।।
     আলতা রাখার পাত্র আমার আধখানা চাঁদ ভাঙা
     তাহারি রং গড়িয়ে পরে (ঐ) অস্ত-আকাশ রাঙা।
আমি  একমুঠো আলো কৃষ্ণা-সাঁঝের হাতে
আমি  নিবেদিত ফুল আকাশ-নদীতে রাতে
     ভাসিয়া বেড়াই যাঁর উদ্দেশে গো
     তার পাই না চরণ-মূল।।

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদরা

Print

আমি গরবিনী মুসলিম বালা

বাণী

আমি গরবিনী মুসলিম বালা

সংসার সাহারাতে আমি গুলে লালা।।

জ্বালায়েছি বাতি (আমি) আঁধার কাবায়

এনেছি খুশির, ঈদে শিরনির থালা।।

আনিয়াছি ঈমান প্রথম আমি

আমি দিয়াছি সবার আগে মোহাম্মদে মালা।।

কত শত কারবালা বদরের রণে

বিলায়ে দিয়াছি স্বামী-পুত্র স্বজনে;

জানে গ্রহ-তারা জানে আল্লাহ তালা।।

রাগ ও তাল

রাগঃ 

তালঃ কাহার্‌বা

Print

আমি চাঁদ নহি চাঁদ নহি অভিশাপ


বাণী

আমি চাঁদ নহি, চাঁদ নহি অভিশাপ

শূন্য হৃদয়ে আজো নিরাশায় আকাশে করি বিলাপ।।

     শত জনমের অপূর্ণ সাধ ল'য়ে

আমি  গগনে কাদিঁ গো ভুবনের চাঁদ হয়ে

জোছনা হইয়া ঝরে গো আমার অশ্রু বিরহ-তাপ।।

কলঙ্কহয়ে বুকে দোলে মোর তোমার স্মৃতির ছায়া

এত জোছনায় ঢাকিতে পারিনি তোমার মধুর মায়া।

     কোন সে সাগর মন্থন শেষে মোরে

     জড়াইয়া যেন উঠেছিলে প্রেমভরে

হায়    তুমি গেছ চলে বুকে তবু দোলে তব অঙ্গের ছাপ।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ দাদরা

Print

আমি চিরতরে দূরে চলে যাব

বাণী

  আমিচিরতরে দূরে চলে যাব তবু আমারে দেব না ভুলিতে আমিবাতাস হইয়া জড়াইব কেশ বেণী যাবে যবে খুলিতে।। তোমার সুরের নেশায় যখন ঝিমাবে আকাশ কাঁদিবে পবন রোদন হইয়া আসিব তখন তোমার বক্ষে দুলিতে।। আসিবে তোমার পরমোৎসব – কত প্রিয়জন কে জানে, মনে প’ড়ে যাবে কোন্‌ সে ভিখারি পায়নি ভিক্ষা এখানে। তোমার কুঞ্জ-পথে যেতে হায় চমকি’ থামিয়া যাবে বেদনায় দেখিবে কে যেন ম’রে মিশে আছে তোমার পথের ধূলিতে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ সিন্ধু-কাফি তালঃ দাদ্‌রা

অডিও

শিল্পীঃ অনুপ ভট্টাচার্য্
   

Print

আমি জানি তব মন বুঝি তব ভাষা


বাণী

আমি জানি তব মন বুঝি তব ভাষা

     তব কঠিন হিয়ার তলে জাগে কি গভীর ভালোবাসা।।

     ওগো উদাসীন! আমি জানি তব ব্যথা

     আহত পাখির বুকে বাণ বিধেঁ কোথা

     কোন অভিমান ভুলিয়াছ তুমি ভালোবাসিবার আশা।।

তুমি   কেন হানো অবহেলা অকারন আপনাকে,

প্রিয়   যে হৃদয়ে বিষ থাকে সে হৃদয়ে অমৃত থাকে।

     তব যে বুকে জাগে প্রলয় ঝড়ের জ্বালা

     আমি দেখেছি যে সেথা সজল মেঘের মালা

ওগো  ক্ষুধাতুর আমারে আহুতি দিলে

     মিটিবে কি তব পরানের পিপাসা।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ কাহারবা

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 1949970 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 4159586 বার