নোটিশ বোর্ড

সম্মানিত অতিথি আপনার প্রিয় নজরুলগীতিটি এই ওয়েব সাইটে খুঁজে না পেলে অনুগ্রহ করে আমাদের জানান। আমরা যথা-শীঘ্র সেইটি সংযোজন করার চেষ্টা করবো।

গান শুনুন

সকল গানের বাণী

Print

মহাকালের কোলে এসে

বাণী

	মহাকালের কোলে এসে গৌরী হ’ল মহাকালী,
	শ্মশান–চিতার ভস্ম মেখে ম্লান হ’ল মার রূপের ডালি।।
		তবু মায়ের রূপ কি হারায়
	সে যেছড়িয়ে আছে চন্দ্র তারায়,
	মায়ের রূপের আরতি হয় নিত্য সূর্য–প্রদীপ জ্বালি’ ।।
	উমা হ’ল ভৈরবী হায় বরণ ক’রে ভৈরবেরে,
হেরি’	শিবের শিরে জাহ্নবী রে শ্মশানে মশানে ফেরে।
		অন্ন দিয়ে ত্রি–জগতে
		অন্নদা মোর বেড়ায় পথে,
	ভিক্ষু শিবের অনুরাগে ভিক্ষা মাগে রাজদুলালী।।

রাগ ও তাল

রাগঃ দুর্গা

তালঃ তেওড়া

ভিডিও

Print

মহাবিদ্যা আদ্যাশক্তি পরমেশ্বরী কালিকা


বাণী

মহাবিদ্যা আদ্যাশক্তি পরমেশ্বরী কালিকা।
পরমা প্রকৃতি জগদম্বিকা, ভবানী ত্রিলোক-পালিকা।।
    মহাকালি মহাসরস্বতী,
    মহালক্ষ্মী তুমি ভগবতী
তুমি বেদমাতা, তুমি গায়ত্রী, ষোড়শী কুমারী বালিকা।।
কোটি ব্রক্ষ্মা, বিষ্ণু, রুদ্র মা মহামায়া তব মায়ায়,
সৃষ্টি করিয়া করিতেছ লয় সমুদ্রে জলবিম্ব-প্রায়।
    অচিন্ত্য পরমাত্মারূপিণী,
    সুর-নর চরাচর-প্রসবিনী।
নমস্তে শিরে অশুভ নাশিনী, তারা মঙ্গল চন্ডিকা।
নমস্তে শিরে অশুভ নাশিনী, তারা মঙ্গল সাধিকা।।


রাগ ও তাল

রাগঃ ভৈরবী
তালঃ তেওড়া

Print

মহুল গাছে ফুল ফুটেছে নেশার ঝোঁকে ঝিমায়


বাণী

মহুল গাছে ফুল ফুটেছে নেশার ঝোঁকে ঝিমায় পবন

গুনগুনিয়ে ভ্রমর এলো, (ওলো) ভুল করে তোর ভোলালো মন।।

      আঁউরে গেছে মুখখানি ওর

      কর লো বাতাস খুলে আঁচর

চাঁদের লোভে এলো চকোর (ও তুই) মেঘে ঢাকিসনে লো নয়ন।।

      কেশের কাঁটা বিধে পাখায়

      রাখলো ওরে বেঁধে শাখায়

মৌটুসি মৌ মদের মিঠায় (ও তুই) কপটে কর নিকট আপন।।


রাগ ও তাল

রাগঃ

তালঃ ফেরতা (দ্রুত-দাদরা ও কাহারবা)

Print

মহুয়া বনে বন-পাপিয়া

বাণী

মহুয়া বনে বন-পাপিয়া
একলা ঝুরে নিশি জাগিয়া।।
ফিরিয়া কবে প্রিয় আসিবে
ধরিয়া বুকে কহিবে প্রিয়া।।
শুনি নীরবে, গগনে বসি’
কহ যে কথা বিরহী শশী,
তব রোদনে বঁধূ, এ মনে
যমুনা বহে কূল-প্লাবিয়া।।

রাগ ও তাল

রাগঃ কলাবতী

তালঃ প্রিয়া

ভিডিও

Print

মা আমি আর কি ভুলি


বাণী

মা আমি আর কি ভুলি
মাগো আমি আর কি ভুলি।
চরণ যখন ধরেছি তোর মাগো আমি আর কি ভুলি।
আমায় বহু জনম ঘুরিয়েছিস্ মা পরিয়ে চোখে মায়ার ঠুলি॥
    তোর পা ছেড়ে যে মোক্ষ যাচে,
    তুই বর্‌ নিয়ে যা তাহার কাছে
ওমা আমি যেন যুগে যুগে পাই মা প্রসাদ চরণ-ধূলি॥
মোরে শিশু পেয়ে খেল্‌না দিয়ে, রেখেছিলি মা ভুলিয়ে
এখন খেল্‌না ফেলে কোলে নিতে মাকে ডাকি দু’হাত তুলি।
    তোর ঐশ্বর্য যা কিছু মা
    দে ভক্তগণে বিলিয়ে উমা,
তোর ভিখারি এই সন্তানে দিস্ মাতৃনামের ভিক্ষাঝুলি॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

মা এসেছে মা এসেছে মা এসেছে রে


বাণী

মা এসেছে, মা এসেছে, মা এসেছে রে
মা এসেছে, মা এসেছে উঠ্‌ল কলরোল।
(ওরে) দিকে দিকে বেজে ওঠে সানাই কাঁসর ঢোল॥
ভরা নদীর কূলে কূলে, শিউলি শালুক পদ্মফুলে।
মায়ের আসার আভাস দুলে আনন্দ-হিল্লোল,
সেই খুশিতে পড়ল নিটোল নীল আকাশে টোল্॥
বিনা কাজের মাতন রে আজ কাজে দে ভাই ক্ষমা,
বে-হিসাবী করব খরচ সাধ যা আছে জমা।
এক বছরের অতৃপ্তি ভাই, এই ক’দিনে কিসে মিটাই,
কে জানে ভাই ফিরব কিনা আবার মায়ের কোল্ ।
আনন্দে আজ আনন্দকে পাগল ক’রে তোল্॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

মা কবে তোরে পারব দিতে আমার সকল ভার


বাণী

মা    কবে তোরে পারব দিতে আমার সকল ভার।
    ভাবতে কখন পারব মাগো নাই কিছু আমার॥
        কারেও আনিনি মা সঙ্গে ক’রে
        রাখতে নারি কারেও ধ’রে
    তুই দিস্, তুই নিস্ মা হ’রে (আমার) কোথায় অধিকার॥
    হাসি খেলি, চলি, ফিরি ইঙ্গিতে মা তোরই,
    তোরই মাঝে লভি, তোরই মাঝে মরি।
        পুত্র-মিত্র-কন্যা-জায়া,
        মহামায়া তোরই মায়া,
    মা তোর লীলার পুতুল আমি ভাবতে দে এবার॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

মা মা গো আমার অহঙ্কারের মূল কেটে


বাণী

মা, মা গো –
আমার অহঙ্কারের মূল কেটে দে কাঠুরিয়ার মেয়ে,
কত নিরস তরু হ’ল মঞ্জুরিত তোর চরণ-পরশ পেয়ে।।
রোদে পুড়ে জলে ভিজে মা দিয়েছি ফুল ফল
শাখায় আমার, নীড় বেঁধেছে বিহঙ্গের দল।
বটের মত সাড়া দেহ মাগো মায়ার জটে আছে ছেয়ে।।
ও মা মুল আছে তাই বৈতরণীর কূলে আছি পড়ি
নইলে হ’তাম খেয়াঘাটের পারাপারের তরী।
    তুই খড়গের ভয় দেখাস মিছে
    মুক্তি আছে এরি পিছে মাগো
তোর হাসির বাঁশি শুনতে পাবো অসির আঘাত খেয়ে।।

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 2578316 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 4769151 বার