নোটিশ বোর্ড

সম্মানিত অতিথিগণ সার্ভারের কারিগরি সমস্যার কারণে মাঝে মধ্যে নজরুলগীতি ওয়েব সাইটটি দেখতে সমস্যা হচ্ছে। এই অনাকাঙ্ক্ষিত অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

গান শুনুন

সকল গানের বাণী

Print

রক্ষাকালীর রক্ষা-কবচ আছে আমায় ঘিরে


বাণী

রক্ষাকালীর রক্ষা-কবচ আছে আমায় ঘিরে
মায়ের পায়ের ফুল কুড়িয়ে বেঁধেছি মোর শিরে॥
    মা’র চরণামৃত খেয়ে
    অমৃতে প্রাণ আছে ছেয়ে,
দুঃখ অভাব ভাবনার ভার দিয়েছি মা ভবানীরে॥
তারা নামের নামাবলী জড়িয়ে আমার বুকে,
মায়ের কোলে শিশুর মত ঘুমাই পরম সুখে।
    মা’র ভক্তের চরণ ধূলি
    নিয়েছি মোর বক্ষে তুরি
মায়ের পূজার প্রসাদ পেতে আমি আসি ফিরে ফিরে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

রঙ্গিলা আপনি রাধা

বাণী

রঙ্গিলা আপনি রাধা তারে হোরির রঙ দিও না

ফাগুনের রাণীরে শ্যাম আর ফাগে রাঙিয়ো না।।

রাঙা আবির রাঙ্গা ঠোঁটে

গালে ফাগের লালী ফোটে

রঙ সায়রে নেয়ে উঠে অঙ্গে ঝরে রঙের সোনা।।

অনুরাগ রাঙা মনে

রঙের খেলা ক্ষণে ক্ষণে

অন্তরে যার রঙের লীলা তারে বাহিরে রঙ লাগিয়ো না।।

রাগ ও তাল

রাগঃ কাফিসিন্ধু মিশ্র

তালঃ কাহার্‌বা

 

 

Print

রসুল নামের ফুল এনেছি রে


বাণী

রসুল নামের ফুল এনেছি রে (আয়) গাঁথবি মালা কে
এই মালা নিয়ে রাখবি বেঁধে আল্লা তালাকে॥
    অতি অল্প ইহার দাম
    শুধু আল্লা রসুল নাম
এই মালা প’রে দুঃখ শোকের ভুলবি জ্বালাকে॥
এই ফুল ফোটে ভাই দিনে রাতে (ভাইরে ভাই) হাতের কাছে তোর
ও তুই কাঁটা নিয়ে দিন কাটালি রে তাই রাত হ’ল না ভোর।
    এর সুগন্ধ আর রূপ র’য়ে যায়
    নিত্য এসে তোর দরজায় রে
পেয়ে ভাতের থালা ভুললি রে তুই চাঁদের থালাকে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দ্রুত-দাদ্‌রা

Print

রহি' রহি' কেন সে-মুখ পড়ে মনে


বাণী

রহি' রহি' কেন সে-মুখ পড়ে মনে

ফিরায়ে দিয়াছি যারে অনাদরে অকারণে।

উদাসী অলস দুপুরে

মন উড়ে' যেতে চায় সুদূরে

যে বন-পথে সে ভিখারির বেশে

করুণা জাগায়ে ছিল সকরুণ নয়নে।।

তার বুকে ছিল তৃষ্ণা মোর ঘটে ছিল বারি

পিয়াসি ফটিকজল জল পাইল না গো

ঢলিয়া পড়িল হায় জলদ নেহারি।

তার অহ্জলির ফুল পথ-ধূলিতে

ছড়ায়েছি-সেই ব্যথা নারি ভুলিতে

অন্তরালে যারে রাখিনু চিরদিন

অন্তর জুড়িয়া কেন কাঁদে সে গোপনে।।


রাগ ও তাল

রাগঃ মিশ্র নারায়ণী

তালঃ আদ্ধা

Print

রাই বিনোদিনী দোলো ঝুলন দোলায়


বাণী

রাই বিনোদিনী দোলো ঝুলন দোলায়॥
একা লাগে না ভালো
সাথে এসে দোলো শ্যামরায়॥
রাঙা চরণ দেখিতে পাব বলে
ওগো দাঁড়াইয়া এই তরুতলে
শ্যাম বাঁধিয়া বাহু ডোরে
আশ্রয় দাও মোরে একা বড় ভয় পায়॥

চলচ্চিত্রঃ ‘বিদ্যাপতি’

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

রাখ রাখ রাঙা পায় হে শ্যামরায়


বাণী

রাখ রাখ রাঙা পায়, হে শ্যামরায়!
ভুলে গৃহ স্বজন সবই সঁপেছি তোমায়॥
সংসার মরু ঘোর, নাহি তরু-ছায়া,
নব নীরদ শ্যাম, আনো মেঘ-মায়া;
আনন্দ-নীপবনে নন্দ-দুলাল এসো,
বাহও উজান, হরি, অশ্রুর যমুনায়॥
একা জীবন মোর গহন ঘন ঘোর,
এসো এ বনে বনমালী, গোপ কিশোর,
কুঞ্জ রচেছি দুখ-শোক তমাল-ছায় - 
প্রেম-প্রীতির গোপী চন্দন শুকায়ে যায়॥
দারা সুত প্রিয়জন, হরি হে, নাহি চাই,
পদ্মা-পলাশ-আঁখি যদি দেখিতে পাই;
রাখাল-রাজা এসো, এসো হে ঋষিকেশ,
গোকুলে লহ ডাকি’, অকূলে ভাসি হায়॥

রাগ ও তাল

রাগঃ তিলক-কামোদ
তালঃ আদ্ধা

Print

রাঙা জবার বায়না ধ’রে আমার কালো মেয়ে কাঁদে


বাণী

রাঙা জবার বায়না ধ’রে আমার কালো মেয়ে কাঁদে
সে তারার মালা সরিয়ে ফেলে এলোকেশ নাহি বাঁধে॥
পলাশ অশোক কৃষ্ণচূড়ায়, রাগ ক’রে সে পায়ে গুঁড়ায়
সে কাঁদে দু’হাত দিয়ে ঢেকে যুগল আঁখি সূর্য চাঁদে॥
অনুরাগের রাঙাজবা থাক না মোর মনের বনে
আমার কালো মেয়ের রাগ ভাঙাতে ফিরি জবার অন্বেষণে।
মা’র রাঙা চরণ দেখতে পেয়ে, বলি এই যে জবা হাবা মেয়ে
(সে)    জবা ভেবে আপন পায়ে উঠলো নেচে মধুর ছাঁদে॥

রাগ ও তাল

রাগঃ
তালঃ দাদ্‌রা

Print

রাঙামাটির পথে লো

বাণী

রাঙামাটির পথে লো মাদল বাজে, বাজে বাঁশের বাঁশি,
বাঁশি বাজে বুকের মাঝে লো, মন লাগে না কাজে লো,
রইতে নারি ঘরে ওলো প্রাণ হলো উদাসী লো ।।

মাদলীয়ার তালে তালে অঙ্গ ওঠে দুলে লো,
দোল লাগে শাল পিয়াল বনে, নোটন খোঁপার ফুলে লো,
মহুয়া বনে লুটিয়ে পরে মাতাল চাঁদের হাসি লো ।।
চোখে ভালো লাগে যাকে, তারে দেখবো পথের বাঁকে,

তার চাঁচড় কেশে বেঁধে দেবো ঝুমকো জবার ফুল
তার গলার মালার কুসুম কেড়ে করব কানের দুল।
তার নাচের তালের ইশারাতে বলবো ভালোবাসি লো ।।

রাগ ও তাল

রাগঃ মালকোষ

তালঃ দ্রুতদাদ্‌রা


অডিও

শিল্পীঃ ইন্দ্রানী সেন

 

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 1947797 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 4157124 বার