দেশ মিশ্র

  • দুলিবি কে আয় মেঘের দোলায়

    বাণী

    দুলিবি কে আয় মেঘের দোলায়।
    কুসুম দোলে পাতার কোলে পুবালি হাওয়ায়।।
    অলকা-পরী অলক খু’লে
    কাজরি নাচে গগন-কূলে,
    বলাকা-মালার ঝুলন ঝুলায়।।
    দাদুরি বোলে, ডাহুকী ডাকে
    ময়ূরী নাচে তমাল শাখে,
    ময়ূর দোলে কদম-তলায়।।
    তটিনী দুলে ঢেউয়ের তালে,
    নিবিড় আঁধার ঝাউয়ের ডালে,
    বেণুর ছায়া ঘনায় মায়া পরান ভোলায়।।
    
  • পিয়া পিয়া পিয়া পাপিয়া পুকারে

    বাণী

    পিয়া পিয়া পিয়া পাপিয়া পুকারে।
    চোখ গেল বিরহিণীর বধূর মনের কথা —
    	কাঁদিয়া বেড়ায় বাদল-আঁধারে॥
    প্রথম বিরহ অল্প-বয়সী
    ভুলি’ গৃহকাজ রহে বাতায়নে বসি’,
    পাখির পিয়া-স্বর বুকে তার তোলে ঝড় —  
    	অঞ্চলে আঁখি-জল মোছে বারে বারে ॥
    পরেনি বেশ, বাঁধেনি কেশ ম্লান-মুখী দীপালিকা,
    নীরব দেহে যেন শুকায়ে যায় ওগো মালতীর মালিকা।
    বনের বিহঙ্গ ছাড়ি’ বিহগীরে
    যায় না বিদেশে, রহে সুখ-নীড়ে,
    বলো কেমনে, ওগো প্রেমের বিধাতা —
    	বিরহ-দাহ সহি’ হিয়ার মাঝারে ॥
    
  • বিশ্ব ব্যাপিয়া আছ তুমি জেনে

    বাণী

    বিশ্ব ব্যাপিয়া আছ তুমি জেনে শান্তি ত’ নাহি পাই।
    রূপ ধরে এসো, দাঁড়াও সুমুখে, দেখিয়া আঁখি জুড়াই॥
    	আমার মাঝারে যদি তুমি রহ
    	কেন তবে এই অসীম বিরহ
    কেন বুকে বাজে নিবিড় বেদনা মনে হয় তুমি নাই॥
    চাঁদের আলোকে ভরে না গো মন, দেখিতে চাই যে চাঁদ,
    ফুলর গন্ধ পাইলে, জাগে যে ফুল দেখিবার সাধ।
    	(ওগো) সুন্দর, যদি নাহি দেবে ধরা
    	কেন প্রেম দিলে বেদনায় ভরা
    রূপের লাগিয়া কেন প্রাণ কাঁদে রূপ যদি তব নাই॥