মাঢ় মিশ্র

  • আয় মরু পারের হাওয়া নিয়ে যা রে

    বাণী

    আয় মরু পারের হাওয়া নিয়ে যা রে মদিনায় —
    জাত-পাক মুস্তাফার রওজা মুবারক যেথায়।।
    মরিয়া আছি দুখে মাশরেকী এই মুল্লুকে,
    পড়ব মাগরিবের নামাজ কবে খানা-এ কা'বায়।।
    হজরতের নাম তসবি করে যাব রে মিসকিন বেশে
    ইসলামের ঐ দ্বীনী ডঙ্কা বাজল প্রথম যে দেশে।
    কাঁদব ধরে মাজার শরীফ ধরে শুনব সেথায় কান পাতি, —
    নবীর মুখে তেমনি কি রে রব ওঠে 'এ্যায় উম্মতি'!
    পাক কোরানের কালাম হয়ত সেথা শোনা যায়।।
    
  • খোদার প্রেমের শরাব পিয়ে

    বাণী

    খোদার প্রেমের শরাব পিয়ে বেহুঁশ হয়ে রই প’ড়ে
    ছেড়ে’ মস্‌জিদ আমার মুর্শিদ এল যে এই পথ ধ’রে।।
    দুনিয়াদারির শেষে আমার নামাজ রোজার বদ্‌লাতে
    চাইনে বেহেশ্‌ত্‌ খোদার কাছে নিত্য মোনাজাত ক’রে।।
    কায়েস যেমন লাইলী লাগি’ লভিল মজনু খেতাব
    যেমন ফরহাদ শিঁরির প্রেমে হ’ল দিওয়ানা বেতাব।
    বে–খুদীতে মশ্‌গুল্‌ আমি তেমনি মোর খোদার তরে।।
    

  • নাচিছে নটনাথ শঙ্কর মহাকাল

    বাণী

    নাচিছে নটনাথ, শঙ্কর মহাকাল।
    লুটাইয়া পড়ে দিবা-রাত্রির বাঘছাল
    আলো-ছায়ার বাঘ ছাল।।
    ফেনাইয়া ওঠে নীল-কণ্ঠের হলাহল,
    ছিঁড়ে পড়ে দামিনী অগ্নি-নাগিনী দল।
    দোলে ঈশান-মেঘে ধূর্জটি-জটাজাল।।
    বিষম ছন্দে বোলে ডমরু নৃত্য-বেগে,
    ললাট-বহ্নি দোলে প্রলয়ানন্দে জেগে।
    চরণ-আঘাত লেগে শ্মশানে কঙ্কাল।।
    সে নৃত্য-ভঙ্গে গঙ্গা-তরঙ্গে
    সঙ্গীত দুলে ওঠে অপরূপ রঙ্গে,
    নৃত্য-উছল জলে বাজে জলদ তাল।।
    সে নৃত্য-ঘোরে ধ্যান-নিমীলিত ত্রিনয়ন
    প্রলয়ের মাঝে হেরে নব সৃজন-স্বপন,
    জোছনা-আশিস্ ঝরে উছলিয়া শশী-থাল।।
    

    নাটকঃ ‘আলেয়া’

  • যাবার বেলায় ফেলে যেয়ো একটি খোঁপার ফুল

    বাণী

    যাবার বেলায় ফেলে যেয়ো একটি খোঁপার ফুল (প্রিয়)
    আমার চোখের চেয়ে চেয়ো একটু চোখের ভুল (প্রিয়)।।
    অধর –কোণের ঈয়ৎ হাসির ক্ষণিক আলোকে
    রাঙ্গিয়ে যেয়ো আমার হিয়ার গহন কালোকে
    যেয়ো না গো মুখ ফিরিয়ে দুলিয়ে হীরের দুল।।
    একটি কথা ক’য়ে যেয়ো, একটি নমস্কার,
    সেই কথাটি গানের সুরে গাইব বারেবার
    হাত ধ’রে মোর বন্ধু ব’লো একটু মনের ভুল।।