নোটিশ বোর্ড

সম্মানিত অতিথি আপনার প্রিয় নজরুলগীতিটি এই ওয়েব সাইটে খুঁজে না পেলে অনুগ্রহ করে আমাদের জানান। আমরা যথা-শীঘ্র সেইটি সংযোজন করার চেষ্টা করবো।

গান শুনুন

Print

চম্‌’কে চম্‌’কে ধীর ভীরু পায়

বাণী

চম্‌কে চম্‌কে ধীর ভীরু পায়,

পল্লীবালিকা বনপথে যায় একেলা বনপথে যায়।।

শাড়ি তার কাঁটা লতায়, জড়িয়ে জড়িয়ে যায়,

পাগল হাওয়াতে অঞ্চল লয়ে মাতে

যেন তার তনুর পরশ চায়।।

শিরীষের পাতায় নূপুর, বাজে তার ঝুমুর ঝুমুর,

কুসুম ঝরিয়া মরিতে চাহে তার কবরীতে,

পাখী গায় পাতার ঝরোকায়।।

চাহি তার নীল নয়নে, হরিণী লুকায় বনে,

হাতে তার কাঁকন হতে মাধবী লতা কাঁদে,

ভ্রমরা কুন্তলে লুকায়।।

রাগ ও তাল

আরবি সুর

তালঃ কাহার্‌বা


অডিও

শিল্পীঃ অনুরাধা পোড়োয়াল

 

Print

ঘুমিয়ে গেছে শ্রান্ত হয়ে

বাণী

ঘুমিয়ে গেছে শ্রান্ত হয়ে আমার গানের বুলবুলি

করুণ চোখে চেয়ে আছে সাঁঝের ঝরা ফুলগুলি।।
ফুল ফুটিয়ে ভোর বেলাতে গান গেয়ে
নীরব হল কোন নিষাদের বান খেয়ে;
বনের কোলে বিলাপ করে সন্ধ্যারাণী চুল খুলি।।
কাল হতে আর ফুটবে না হায় লতার বুকে মঞ্জরী,
উঠছে পাতায় পাতায় কাহার করুণ নিশাস্‌ মর্মরি
গানের পাখি গেছে উড়ে, শূন্য নীড়

কণ্ঠে আমার নাই যে আগের কথার ভীড়
আলেয়ার এ আলোতে আর আসবে না কেউ কূল ভুলি।।

রাগ ও তাল

রাগঃ ইমন-ভূপালী

তালঃ দাদ্‌রা


অডিও

শিল্পীঃ সতীনাথ

স্বরলিপি


 

Print

গোঠের রাখাল বলে দে রে

বাণী

গোঠের রাখাল, বলে দে রে কোথায় বৃন্দাবন।

(যথা) রাখালরাজা গোপাল আমার খেলে অনুক্ষণ।।

(যথা) দিনে রাতে মিলনরাসে

চাঁদ হাসে রে চাঁদের পাশে,

(যার) পথের ধূলায় ছড়িয়ে আছে শ্রীহরিচন্দন।।

(যথা) কৃষ্ণনামের ঢেউ ওঠে রে সুনীল যমুনায়,

(যার) তমালবনে আজো মধুর কানুর নূপুর শোনা যায়।

আজো যাহার কদম ডালে

বেণু বাজে সাঁঝসকালে,

নিত্য লীলা করে যথা মদনমোহন।।

রাগ ও তাল

রাগঃ রবিকোষ

তালঃ ত্রিতাল

 

Print

গুঞ্জা মালা গলে কুঞ্জে এসো হে কালা


বাণী

গুঞ্জা মালা গলে কুঞ্জে এসো হে কালা
বনমালী এসো দুলায়ে বনমালা॥
তব পথে বকুল ঝরিছে উতল বায়ে
দলিয়া যাবে বলে অকরুণ রাঙা পায়ে
রচেছি আসন তরুণ তমাল ছায়ে
পলাশ শিমুলে রাঙা প্রদীপ জ্বালা॥
ময়ূরে নাচাও তুমি তোমারি নূপুর তালে
বেঁধেছি ঝুলনিয়া ফুলেল কদম ডালে
তোম বিনা বনমালী বিফল এ ফুল দোল
বাঁশি বাজাবে কবে উতলা ব্রজবালা॥

রাগ ও তাল

রাগঃ মালগুঞ্জ
তালঃ ত্রিতাল

Print

গুল–বাগিচার বুলবুলি আমি

বাণী

গুলবাগিচার বুলবুলি আমি রঙিন প্রেমের গাই গজল।

অনুরাগের লাল শারাব মোর আঁখি ঝলে ঝলমল (হায়)।।

আমার গানের মদির ছোঁয়ায়

গোলাপ কুঁড়ির ঘুম টুটে যায়,

সে গান শুনে প্রেমেদীওয়ানা কবির আঁখি ছলছল (হায়)।।

লাল শিরাজীর গেলাস হাতে তন্বী সাকি পড়ে ঢুলে,

আমার গানের মিঠা পানির লহর বহে নহরকূলে।

ফুটে ওঠে আনারকলি নাচে ভ্রমর রংপাগল (হায়)।।

সে সুর শুনে দিশেহারা

ঝিমায় গগন ঝিমায় তারা,

চন্দ্র জাগে তন্দ্রাহারা বনের চোখে শিশির জল (হায়)।।

১. বনের পাতায়

রাগ ও তাল

রাগঃ সিন্ধুকাফি

তালঃ লাউনি


অডিও

শিল্পীঃ রুনা লায়লা

শিল্পীঃ অনুপ বড়ুয়া

স্বরলিপি


 

Print

গানগুলি মোর আহত পাখির সম

বাণী

গানগুলি মোর আহত পাখির সম
লুটাইয়া পড়ে তব পায়ে প্রিয়তম।।

বাণবেঁধা মোর গানের পাখিরে

তুলে নিও প্রিয় তব বুকে ধীরে,

লভিবে মরণ চরণে তোমার সুন্দর অনুপম।।

তারা সুখের পাখায় উড়িতেছিল গো নভে

তব নয়নশায়কে বিঁধিলে তাহাদের কবে।

মৃত্যু আহত কন্ঠে তাহার
‌‌ একি এ গানের জাগিল জোয়ার

মরণ বিষাদে অমৃতের স্বাদ আনিলে নিষাদ মম।।

রাগ ও তাল

রাগঃ ভৈরবী

তালঃ দাদ্‌রা

স্বরলিপি


 

লগইন

বাণী দেখা হয়েছে

গানের বাণী দেখা হয়েছে 1995774 বার

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে

ওয়েব সাইটটি দেখা হয়েছে 4202808 বার